Select your Language: हिन्दी
United Nations

রাষ্ট্রসংঘের সাধারণ পরিষদে প্রধানমন্ত্রী ভাষণ

মাননীয় সাধারণ পরিষদের সভাপতি, মিঃ ভোলকান ওজির, সুধীবৃন্দ, ভদ্রমহোদয়া এবং ভদ্রমহোদয়গণ, নমস্কার!

৭৫ বছর আগে যুদ্ধের ভয়াবহতা থেকে নতুন এক আশার সঞ্চার হয়েছিল। মানবতার ইতিহাসে সমগ্র বিশ্বের জন্য একটি প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা হয়েছিল। রাষ্ট্রসংঘের সনদের প্রতিষ্ঠাতা স্বাক্ষরকারী হিসেবে ভারত সেই মহান উদ্দেশ্যের অংশীদার ছিল। এর মধ্য দিয়ে ভারতের নিজস্ব দর্শন ‘বসুধৈব কুটুম্বকম’ প্রতিফলিত হয়েছিল- যার অর্থ সকলে একই পরিবারের সদস্য।

রাষ্ট্রসংঘের জন্য আমাদের বিশ্ব আজকে এতো ভালো অবস্থায় রয়েছে। রাষ্ট্রসংঘের পতাকাকে যাঁরা শান্তি এবং উন্নয়নের জন্য বহন করেছেন তাঁদের সবাইকে আমরা শ্রদ্ধা জানাই। রাষ্ট্রসংঘের শান্তিরক্ষী বাহিনীও এর অন্তর্ভুক্ত, ভারত যার প্রথম সারির অংশীদার।

যদিও অনেক কিছু অর্জিত হয়েছে কিন্তু আসল লক্ষ্য এখনও পূরণ হওয়া বাকি আছে। সুদূর প্রসারী যে ঘোষণা আজ আমরা গ্রহণ করেছি তার মধ্যে দিয়ে আরও অনেক কাজ যে বাকি রয়েছে, সেটিই  স্বীকৃত হয় : সংঘাত বন্ধ করা, উন্নয়ন নিশ্চিত করা, জলবায়ু পরিবর্তনের সমস্যার সমাধান করা, অসাম্য দূর করা এবং ডিজিটাল প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়ানো। এই ঘোষণা রাষ্ট্রসংঘের সংস্কারের চাহিদাকে স্বীকৃতি দিচ্ছে।

পুরনো কাঠামোর ওপর দাঁড়িয়ে আমরা আজকের চ্যালেঞ্জগুলি মোকাবিলা করতে পারিনা। সর্বাঙ্গীন সংস্কার ছাড়া রাষ্ট্রসংঘ আজ আস্থার সংকটে ভুগছে।  পরস্পরের সঙ্গে  যুক্ত আজকের এই পৃথিবীতে আমাদের বহুপাক্ষিক সংস্কারের প্রয়োজন : যেটি বর্তমান বাস্তবতার প্রতিফলন ; সংশ্লিষ্ট সকলের বক্তব্য শোনার সুযোগ দেওয়া প্রয়োজন ; সমসাময়িক চ্যালেঞ্জগুলির সমাধানের প্রয়োজন ; এবং মানব কল্যাণের দিকে নজর দিতে হবে।

এই লক্ষ্যে ভারত অন্য সমস্ত রাষ্ট্রের সঙ্গে একযোগে কাজ করার বিষয়ে আগ্রহী।

Back to top button